জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল পতিরোধ ফাউন্ডেশন
জাতীয় ভেজাল পতিরোধ ফাউন্ডেশন

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার তদারকিঃ বিভিন্ন অপরাধে ৭১টি প্রতিষ্ঠানকে ৩.৩০ লক্ষ টাকা জরিমানা

              বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বিভিন্ন বিভাগ ও জেলা কার্যালয়ের ১৯ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে নরসিংদী, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, শরীয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, বগুড়া, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি, ঝিনাইদহ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কক্সবাজার, কুমিল্লা, মৌলভীবাজার, ফেনী ও ব্রাহ্মণবাড়ীয়াতে আজ বাজার তদারকি করা হয়।       নরসিংদী জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো: আব্দুল জব্বার মন্ডলের নেতৃত্বে নরসিংদী সদর উপজেলায় ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১১,০০০/- (এগার হাজার) টাকা, ময়মনসিংহ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো: শাহ আলমের নেতৃত্বে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় ৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৫,০০০/- (পঁয়ষট্টি হাজার)

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার তবিভিন্ন অপরাধে ২6টি প্রতিষ্ঠানকে ১.১4 লক্ষ টাকা জরিমানা দারকিঃ

              বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়, বিভিন্ন বিভাগ ও জেলা কার্যালয়ের ৮ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর, বরিশাল, ঝালকাঠি, দিনাজপুর, সিলেট, মৌলভীবাজার ও নওগাঁয় আজ বাজার তদারকি করা হয়।       ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহনাজ সুলতানার নেতৃত্বে ঢাকা মহানগরীর নিউমার্কেট এলাকায় পণ্যের মোড়কে এমআরপি লেখা না থাকার অপরাধে ছায়ানীড় কনফেকশনারী ও বিক্রমপুর মিষ্টান্ন ভান্ডারকে যথাক্রমে ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা ও ২০,০০০/- (বিশ হাজার) টাকাসহ মোট ৩০,০০০/- (ত্রিশ হাজার) টাকা জরিমানা আরোপ ও

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার তদারকিঃ বিভিন্ন অপরাধে ৬৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৩.৭৭ লক্ষ টাকা জরিমানা

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়, বিভিন্ন বিভাগ ও জেলা কার্যালয়ের ১৮ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর, ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, গোপালগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, কুষ্টিয়া, মাগুরা, বাগেরহাট, রাজশাহী, সিলেট, মৌলভীবাজার, বরিশাল এবং ঝালকাঠিতে আজ বাজার তদারকি করা হয়।    ঢাকা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো: আব্দুল জব্বার মন্ডলের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগরীর কাফরুল এলাকায় বাটখারা বা ওজন পরিমাপক যন্ত্রে কারচুপির অপরাধে হাসান ফিলিং স্টেশন ও এ. এম. ফিলিং স্টেশনকে যথাক্রমে ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা ও ৩০,০০০/- (ত্রিশ হাজার) টাকাসহ

বায়ু দূষণ ও ভেজাল খাদ্যে মানুষ রোগাক্রান্ত হচ্ছে…আমু

নিউজডেস্ক :: বায়ু দূষণ ও খাদ্যে ভেজালের কারণে বাংলাদেশের মানুষ বেশি রোগাক্রান্ত হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। বৃহস্পতিবার ‘বাংলাদেশে ভোজ্যতেল সমৃদ্ধকরণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নির্বাচিত ভোজ্যতেল রিফাইনারিগুলোর কাছে আই-চেক ক্রোমা নামক মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, এর প্রতিরোধে বর্তমান সরকার জনসচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি আইন কাঠামো জোরদার করেছে। ভোক্তা পর্যায়ে ভিটামিন ‘এ’ সমৃদ্ধ ভোজ্যতেলের সরবরাহ নিশ্চিত করতে ভোজ্যতেলে ভিটামিন-এ সমৃদ্ধকরণ আইন, ২০১৩ এবং এ বিষয়ক বিধিমালা-২০১৫ প্রণয়ন করা হয়েছে। এর আওতায়

সংবাদ প্রকাশের পর ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ভেজাল সার আটক, জরিমানা

ভেজাল বিরোধী ভ্রাম্যমান আদালত গতকাল সোমবার চুয়াডাঙ্গা  সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ ও খাড়াগোদা বাজারে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ ভেজাল ও নিম্নমানের দস্তাসার আটক করেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভ’মি)  টীটন খীসার নেতৃত্বে আদালত এসময় তিন মজুদদারকে  অর্থদন্ডাদেশ দিয়েছেন। ভেজাল বিরোধী ভ্রাম্যমান আদালত অভিযানকালে প্রথমে খাড়াগোদা বাজারের আহসান হাবীবের দোকান থেকে ২০৫ প্যাকেট ‘করজিংক হেপ্টা ’ আটক করে। নিম্নমানের এই সার বিক্রির দায়ে  আহসান হাবীবকে দুই হাজার টাকা অর্থদন্ডাদেশ প্রদান করেন। এরপর সরোজগঞ্জ বাজারের ব্শ্বিাস বীজ কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে ৫০ প্যাকেট

খাদ্যে ভেজাল : কি করছে সরকার?

স্কুল পড়ুয়া ছেলেটার মাথার চুলে চোখ পড়তেই চোখ যেন ছানাবড়া। সাদা চুলে আটকে গেল চোখ। অসংখ্য চুলে পাক ধরেছে। ভাগ্নেটার চোখে মোটা পাওয়ারওয়ালা চশমা। বিছানায় কাতরাচ্ছে ক্যান্সারে আক্রান্ত চাচা। ভাবী, এসব কী হচ্ছে দেশে। সব শেষ হয়ে যাচ্ছে না তো? খাবারে ভেজালের জন্যই এমনটা হচ্ছে। ভেজাল নেই কোথায়? চিকিৎসায় ভেজাল, কথায় ভেজাল, রাজনীতিতে ভেজাল। কোথাও যেন এক দন্ড শান্তি নেই। এমন হচ্ছে কেন? আমরা খাবার খাচ্ছি, না বিষ খাচ্ছি? চারদিকে ফরমালিনের জয়জয়কার। মাছ, আম, জাম, কাঁঠাল, তরকারিতে কোথায় নেই এই

ফরিদপুর ভেজাল ঘি কারখানায় অভিযান ভ্রাম্যমান আদালতে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

সোমবার ফরিদপুর উপজেলার ডেমরা বাজারে ৬টি ঘি কারখানায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ভেজাল ঘি উৎপাদনের কারণে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জাহিদ হাসান সিদ্দিকী। পাবনা র‌্যাব ১২ এর সহযোগিতায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়। ডেমরা বাজারের মৃত বৈদ্য ঘোষের ছেলে নব কুমারের সেতু ঘি কারখানায় অভিযান চালিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ভেজাল ঘি উৎপাদনের দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় ও অন্যান্য দ্রব্য সামগ্রি বাজেয়াপ্ত করা হয়। এছাড়া সন্তোষ

গ্যাসফিল্ড থেকেই আসছে ভেজাল জ্বালানি তেল!

পেট্রলপাম্পগুলো উচ্চমাত্রার সিসাযুক্ত কনডেনসেট (অপরিশোধিত) জ্বালানি তেল বিক্রি করলেও ভেজাল এ তেলের সরবরাহ আসে সরাসরি গ্যাসফিল্ড থেকেই। ফিল্ডের কিছু অসাধু কর্মকর্তা এবং বেসরকারি রিফাইনারি প্রতিষ্ঠানগুলোর দায়িত্বশালীরা পাম্পগুলোর সঙ্গে আঁতাত করে এসব অনিয়ম চালিয়ে আসছে। আর অধিক মুনাফার আশায় পাম্প মালিকরা কনডেনসেট পেট্রল ও অকটেন বিক্রি করছেন। এর ফলে তেলচালিত যানবাহনের ইঞ্জিনসহ মূল্যবান যন্ত্রপাতির যেমন ক্ষতি হচ্ছে তেমনি পরিবেশেরও ভয়াবহ দূষণ ঘটছে। জাতীয় সংসদ ভবনে রোববার অনুষ্ঠিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এসব বিষয় তুলে

ভেজাল বিরোধী অভিযান: ৬ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

ময়মনসিংহের ভালুকা পৌর এলাকার বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে (২৬জুলাই) বুধবার দুপুরে ভেজাল বিরোধী অভিযান চালিয়ে ৬টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর ময়মনসিংহের সহকারী পরিচালক মো. শাহ-আলমের নেতৃত্বে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় এ ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে রাজধানী হোটেলকে ২০ হাজার, হোজাইফা হোটেলকে ২০ হাজার, ধামরাই মিষ্টান্ন ভান্ডারকে ২০ হাজার, লাভেলো আইসক্রিম ফ্যাক্টরীকে ৫০ হাজার, নিলা হোটেলকে ৫ হাজার ও সীমান্ত মিষ্টান্ন ভান্ডারকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভেজাল আর বিষে ভরা খাদ্য: নীরব প্রশাসন

আজকাল খাবারে ভেজাল কথাটা যেন প্রভাতে সূর্য উদয়ের মতোই সত্য। ব্যবসায় অধিক লাভের আশায় দিনকে দিন মানুষ তার মনুষ্যত্ব খুইয়ে ফেলছে। খাদ্যশস্য, ফলমূল, সবজি ইত্যাদি উৎপাদনে রাসায়নিকের ব্যবহার, মাঠ থেকে উত্তোলন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, আবার খাবার তৈরির সময়ও তাতে থাকছে ভেজালের স্পর্শ। এভাবে পুরো খাবারে ভেজালের ভাগটাই হয়ে যাচ্ছে বেশি। ফলে ক্রমান্বয়ে দেশে জটিল ও কঠিন রোগে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। ফরমালিন, কার্বাইড, ইউরিয়া, হাইড্রোজসহ নানা ক্ষতিকর ও রাসায়নিক পদার্থ খাদ্যে ব্যবহার বন্ধ করা যাচ্ছে না। বছরের পর বছর ধরে খাদ্যে ভেজাল